দুশ্চিন্তা ও হতাশা থেকে মুক্তির ইসলামিক উপায়

দুশ্চিন্তা ও হতাশা থেকে মুক্তির ইসলামিক উপায় | Best Islamic Tips to Get Rid of Anxiety and Frustration 2022

দুশ্চিন্তা ও হতাশা থেকে মুক্তির ইসলামিক উপায়: নানাবিধ দুঃশ্চিন্তা ও হাতাশার কারণে মানুষের মাঝে এক ধরণের চাপ সৃষ্টি হয়। সাধারণত এটাকে মানসিক চাপ বলে। পরিবার বা কর্মক্ষেত্রে সমস্যা, সম্পর্কে অবনতি, অর্থনৈতিক সংকট, খারাপ স্বাস্থ্য, এমনকি ঘনিষ্ঠ কারো মৃত্যু— এসব বিভিন্ন কারণে আমরা মানসিক চাপের মধ্যে থাকি। এই মানসিক চাপ বিভিন্ন ধরনের শারীরিক ঝুঁকির কারণ হতে পারে। এর কারণে মানুষিক রোগ ও হয়ে যেতে পারে। তাই নিজেকে ভালো রাখতে চাপ কমানো জরুরি। এমনকি এটি মানসিক রোগ থেকে মুক্তির উপায়  ও বটে। এর জন্য মানসিক রোগ থেকে মুক্তির বা টেনশনের দোয়া ও শিখে নিতে পারেন। ইনশাল্লাহ এটি অনেক কাজে দিবে। 

মানসিক চাপ কমাতে হলে শুরুতে চাপ হওয়ার কারণগুলো জানতে হবে। এরপর সমস্যার গভীরে গিয়ে সমাধান করতে হবে। বিশেষজ্ঞরা বলেন, মানসিক চাপ একা একা সমাধান করার চেষ্টা করবেন না। চাপ নিয়ন্ত্রণে বন্ধু,পরিবারের ঘনিষ্ঠজনদের সাহায্য নিন। প্রয়োজনে মানসিক চিকিৎসকের পরামর্শ নিতে পারেন।

এছাড়াও, এসব মানসিক চাপ উত্তরণে ইসলামে রয়েছে অনেক দিকনির্দেশনা। যা মেনে চললে মানসিক চাপ থেকে মুক্ত থাকা যায়। 

Contents show

দুশ্চিন্তা ও হতাশা থেকে মুক্তির ইসলামিক উপায় | মানুষিক চাপ নিয়ন্ত্রণের উপায়

নিয়মিত কুরআন তেলাওয়াতে  অলসতা 

কুরআন তেলাওয়াত মানুষের অন্তরকে প্রফুল্ল করে তোলে। কেননা কুরআন তেলাওয়াত মুমিনের প্রফুল্লতার অন্যতম উৎস। কুরআনের আলোয় আলোকিত মানুষ দুনিয়ার সব দুঃশ্চিন্তা ও হতাশা থেকে থাকে মুক্ত থাকে।

নামাজে যত্নবান না হওয়া 

যে কোনো বিপদ-আপদের সময় নামাজের মাধ্যমেই প্রকৃত প্রশান্তি লাভ করা  যায়। কেননা নামাজের মাধ্যমেই বান্দা মহান আল্লাহর সাহায্য লাভ করে থাকেন। তাই মানসিক প্রশান্তি লাভে নামাজের ব্যাপারে যত্নবান হওয়া খুবই গুরুত্বপূর্ণ।

– রাসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম কোনো কঠিন সমস্যার সম্মুখীন হলে নামাজ আদায় করতেন।’ (আবু দাউদ)

দোয়া দুরুদ না পড়া 

মানসিক চাপ কমাতে নিয়মিত দোয়া করাও অন্যতম। কারণ হাদিসে দোয়াকে ইবাদতের মূল বলা হয়েছে। দোয়া বা প্রার্থনা করলে, কোনো কিছু চাইলে মহান আল্লাহ খুশি হন। না করলে বরং অসন্তুষ্ট হন। 

রাসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম বলেন, আমি এমন একটি দোয়া সম্পর্কে জানি, কোনো বিপদে পড়া লোক যদি তা পড়ে তবে আল্লাহ তাআলা সে বিপদ দূর করে দেন। সেটি হচ্ছে আমার ভাই (হজরত) ইউনুস (আলাইহিস সালাম)-এর দোয়া। তাহলো-

لَا اِلَهَ اِلَّا اَنْتَ سُبْحَانَكَ اِنِّى كَنْتُ مِنَ الظَّالِمِيْنَ

উচ্চারণ : ‘লা ইলাহা ইল্লা আনতা সুবহানাকা ইন্নি কুনতু মিনাজ জ্বলিমিন।’

অর্থ : হে আল্লাহ! তুমি ছাড়া কোনো সত্য উপাস্য নেই; আমি তোমার পবিত্রতা বর্ণনা করছি। নিঃসন্দেহে আমি জালিমদের অন্তর্ভুক্ত।’ (তিরমিজি)

অন্যের বিষয় নিয়ে মাথা গামানো।

অন্যের বিষয় নিয়ে বেশি মাথা গামাবেন না। আল্লাহ আপনাকে যা দিয়েছেন তা নিয়ে খুশি থাকুন আর আল্লাহর শুকরিয়া আদায় করুন। অন্যের কি আছে…আর কি নেই…এসব নিয়ে পড়ে থাকবেন না।

অতিরিক্ত বোঝা কাঁধে তুলা।

সাধ্যের অতিরিক্ত বোঝা কাঁধে তুলবেন না। আপনার যতটুকু দায়িত্ব ও কর্তব্য ততটুকু পরম আন্তরিকতার সাথে পালন করুন।

অতিরিক্ত লোভ করা 

কোন প্রকারের লোভ করতে যাবেন না। অল্পে তুষ্টি মানষিক শান্তির জন্য খুব গুরুত্বপূর্ণ এবং এটি তাকওয়ারও পরিচায়ক। আর সবচেয়ে বড় কথা হলো প্রত্যেকটা ধর্মেই বিশেষকরে আমাদের ইসলাম ধর্মে লোভ করতে নিষেধ করেছেন।

ভবিষ্যৎ নিয়ে চিন্তায় মগ্ন থাকা

আজকের দিনটিকে ভালোভাবে উপভোগ করুন। আগামীকাল কি হবে সেটা আল্লাহর উপর ছেড়ে দিন। দুনিয়াবি বিষয়ে আগামীর চিন্তায় অস্থির হয়ে মানষিক চাপ বৃদ্ধি করবেন না। 

আত্মসমালোচনা না করা

প্রতিদিন একান্ত নির্জনে কিছু সময় কাটানো। এ সময় আত্মসমালোচনা করুন এবং আল্লাহর নিকট দোয়া করুন।

নেককার পূর্বসুরীদের জীবনী না পড়া

নেককার পূর্বসুরীদের জীবনী পড়ুন। তাদের জীবনের অভিজ্ঞতা ও উপদেশ দুনিয়ার জীবনে আপনার চলার পথকে সহজ করে দিবে ইনশাআল্লাহ। 

দুশ্চিন্তা করা

দুশ্চিন্তা করবেন না। জীবনে আসা বিপর্যয়গুলো সহজভাবে মেনে নিন। মনে রাখবেন আল্লাহর লিখিত তাকদিরের বাইরে কিছুই ঘটে না।

সবকিছু গুরুত্বের সাথে গ্রহণ করা

সবকিছু গুরুত্বের সাথে গ্রহণ করবেন না। মানুষের প্রতিটি কথা বা কাজ গুরুত্বের সাথে বিবেচনা করা ঠিক না। সবকিছু গভীরভাবে বিশ্লেষণ করতে যাবেন না।

দৈনন্দিন কাজের রুটিন না রাখা 

দৈনন্দিন গুরুত্বপূর্ণ কাজের রুটিন তৈরি করুন। অগোছালো কার্যক্রম মানষিক অস্থিরতা বাড়াই। তাই রুটিন অনুযায়ী আগের কাজ আগে, পরের কাজ পরে করুন।

প্রতিটি কাজ ১০০% নির্ভুল হতে হবে এ চিন্তায় মগ্ন থাকা

প্রতিটি কাজ ১০০% নির্ভুল হতে হবে এ চিন্তা মাথা থেকে সরান। কেননা, নির্ভুলতার গুন কেবলমাত্র আল্লাহর। আমরা কেউই ভুলের উর্ধ্বে নই।

আপনার জিজ্ঞাসিত কিছু প্রশ্নাবলী

অবসেসিভ-কমপালসিভ ডিসঅর্ডার’ কী?

এই রোগে রোগীর মনে বারবার এমন কিছু অযৌক্তিক চিন্তা, ইচ্ছা আসে বা কিছু ছবি ভেসে ওঠে— যেগুলি রোগীকে কষ্ট দেয়। কিন্তু অনেক চেষ্টা সত্ত্বেও সেই চিন্তাগুলিকে আটকানো যায় না। অনেক সময়ে এই চিন্তার বশবর্তী হয়ে অনিচ্ছা সত্ত্বেও রোগীকে কিছু কাজ বারবার করতে হয়— যেমন বারবার হাত ধোওয়া বা গোসল  করা (একে আমরা বাংলায় শুচিবাই রোগ বলি)

সোশ্যাল ফোবিয়া কী এবং এর থেকে বাঁচার উপায়?

এই জাতীয় ‘ফোবিয়া’-তে ভিন্ন সামাজিক পরিস্থিতি, নতুন জায়গায় গেলে, অচেনা লোকজনের সঙ্গে কথা বলতে গেলে, স্টেজে উঠে কিছু বলতে গেলে, অনেকের সামনে কিছু বলতে বা উপস্থাপন করতে গেলে রোগী অহেতুক অতিরিক্ত উদ্বিগ্ন হন। আর এই সমস্যা থেকে বাঁচতে হলে আস্তে আস্তে মানুষের সাথে অনর্গল কথা বলার সাহস জোগাতে হবে তার জন্য যারা অনর্গল কথা বলতে পারে তাদের অনুসরণ করতে পারেন। অন্যরা সবাই যদি পারে তাহলে আপনি কেন পারবেন না এরকম একটা মনোভাৱ নিজের মধ্যে নিয়ে আসবেন তাহলে দেখবেন আপনি এ সমস্যা থেকে উত্তরণ হতে পারবেন ইনশাল্লাহ। 

মানসিক চাপ নিয়ন্ত্রণে আপনি কি করতে পারেন?

আপনার স্বাস্থ্যকে অনুকূল করতে খাওয়া -দাওয়া করুন

ব্যায়াম নিয়মিত করুন 

তামাক এবং নিকোটিন পণ্য ব্যবহার বন্ধ করুন

চাপের কাজগুলো হ্রাস করুন

আপনার মূল্যবোধগুলি পরীক্ষা করুন এবং সেগুলি অনুসারে জীবনযাপন করুন

বাস্তবসম্মত লক্ষ্য এবং প্রত্যাশা সেট করুন

মানসিক রোগ থেকে মুক্তির দোয়া?

اللَّهُمَّ إِنِّى أَسْأَلُكَ مِمَّا عِنْدَكَ، وَأَفِضْ عَلَىَّ مِنْ فَضْلِكَ، وَانْشُرْ عَلَىَّ رَحْمَتَكَ، وَأَنْزِلْ عَلَىَّ مِنْ بَرَكَاتِكَ

উচ্চারণ : আল্লাহুম্মা ইন্নি আসআলুকা মিমমা ইনদাকা ওয়া আফিজ আলাইয়্যা মিন ফাদলিকা ওয়াংশুর আলাইয়্যা রহমাতাকা ওয়া আনজিল আলাইয়্যা বারাকাতিকা।

অর্থ : হে আল্লাহ! তোমর কাছে যা আছে আমি তাই তোমার কাছে চাই। তোমার অনুগ্রহের একটু ধারা আমার দিকে প্রবাহিত করো এবং তোমার রহমতের একটু বারি আমার ওপর বর্ষণ করো আর তোমার বরকতসমূহ থেকে একটুখানি আমার প্রতি নাজিল করো।  

Read more: Top 10 Best Muslim Hijab Wedding Dress to Buy USA

Read more: Top 10 Best Hijab for Girls and Muslim Women USA

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Share on pinterest
Share on facebook
Share on twitter
Share on email
Share on linkedin
Share on tumblr
Share on whatsapp
Share on mix